এডুকেশন টুডে

  • Full Screen
  • Wide Screen
  • Narrow Screen
  • Increase font size
  • Default font size
  • Decrease font size

আত্মপ্রকাশ করল এডুকেশন টুডে

ইমেইল প্রিন্ট

গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১১ প্রকাশিত হলো শিক্ষা এবং ক্যারিয়ার বিষয়ক পত্রিকা এডুকেশন টুডের উদ্বোধনী সংখ্যা। বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বরেণ্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে সুফিয়া কামাল গণগ্রন্থাগার (পাবলিক লাইব্রেরি)-এর সেমিনার হলে অত্যনত্ম প্রাণবনত্ম এবং আনন্দঘন পরিবেশে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য জনাব আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, দেশ বরেণ্য সাংবাদিক আতাউস সামাদ, আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নূহ-উল-আলম লেনিন, কানাডার সি ডাবলু ইনস্টিটিউট এর আনত্মর্জাতিক বিভাগের প্রধান কায়সারম্নল হক, মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রীর পিআরও সুবোধ চন্দ্র ঢালী, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথিতযশা শিড়্গকবৃন্দ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ এবং এডুকেশন টুডে’র সম্পাদক এম শরীফ উল আলমসহ এডুকেশন টুডে পরিবার ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।


১৯৬২ সালের এই দিনে শরিফ শিক্ষা কমিশন রিপোর্ট বাতিলের দাবিতে তৎকালীন পাকিসত্মানের সংগ্রামী ছাত্রসমাজ হরতাল আহ্বান করে। সেদিন পুলিশের গুলিতে শহিদ হন বাবুল, গোলাম মোসত্মফা এবং ওয়াজিউলস্নাহ। সে দিনকে স্মরণ করেই প্রতিবছর শিক্ষা দিবস হিসেবে ১৭ সেপ্টেম্বর পালিত হয়ে আসছে। এডুকেশন টুডে সে ঐতিহাসিক দিনকে স্মরণ করেই আত্মপ্রকাশ করল।
উদ্বোধনী আনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জনাব কায়সারম্নল হক। তিনি বলেন, শিক্ষা এবং ক্যারিয়ার সম্পূরক কিন্তু আমাদের অভিভাবকদের ভুলে অনেক ড়্গেত্রে তা পরিপন্থী হয়ে যায়। আমাদের দেশের সকল অভিভাবক তাদের সনত্মানদের ডাক্তার অথবা ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে দেখতে চান। কিন্তু তারা ভাবেন না তার সনত্মানের পড়্গে সেটা হওয়া কতটা সম্ভব। শিক্ষার্থীর হয়তো ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার ইচ্ছাই নেই। ফলে গোড়াতেই একটা গলদ হয়ে যায়। তাই আমাদের অভিভাবকদের উচিত তাদের সনত্মানদের মতামতের গুরম্নত্ব দেওয়া। অবস্থার প্রেড়্গিত এবং সনত্মানদের যোগ্যতা এবং নিজেদের অবস্থা বিবেচনা করে সনত্মানদের ক্যারিয়ার নির্বাচন করা। ক্যারিয়ার হওয়া উচিত শিক্ষার্থীর ইচ্ছায়। তা না হলেই হয় বিপত্তি। এ বিষয়টি  বিশেষত শিক্ষার্থী, শিড়্গক এবং অভিভাবকদের লড়্গ করা দরকার।
বিশিষ্ট সাংবাদিক জনাব আতাউস সামাদ শিক্ষা ড়্গেত্রে সংবাদপত্রের ভূমিকার কথা উলেস্নখ করে বিখ্যাত টাইমস পত্রিকার শিক্ষা ড়্গেত্রে অবদানের কথা বলেন। তিনি শিক্ষা এবং ক্যারিয়ার বিষয়ে গুরম্নত্ব আরোপ করে পেশাগত শিক্ষার মাধ্যমে বাংলাদেশের বিপুল জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে রূপদানের ড়্গেত্রে এডুকেশন টুডে উলেস্নখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক জনাব নূহ-উল-আলম লেনিন বলেন, বাংলাদেশের ছাত্র আন্দোলনের ইতিহাস এক সমৃদ্ধ ইতিহাস। ১৯৬২-র ছাত্র আন্দোলন এবং তার পূর্বে ’৫২-তে ছাত্রদের ভূমিকা ’৬২ পরবর্তী অন্যান্য আন্দোলন এবং ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানসহ আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রদের বড় ভূমিকা রয়েছে। আমাদের জাতীয় রাজনীতিতে ছাত্রদের ভূমিকা বিশাল ক্যানভাসে ভাস্কর। তিনি আরও বলেন, এডুকেশন টুডে যেন জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করতে পারে সে প্রত্যাশা আমাদের সকলের।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ঐতিহাসিক শিক্ষা দিবসে এডুকেশন টুডে’র আত্মপ্রকাশ- এটি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়। তিনি বলেন, শিক্ষা সবার অধিকার। ১৬ কোটি মানুষের সেক্টর এ শিক্ষা। সকলে হয়তো উচ্চ শিক্ষায়  যাবে না কিন্তু সকল শিশুর প্রাথমিক শিক্ষার অধিকার  নিশ্চিত করতে হবে আমাদের। এটা শিশুদের সাংবিধানিক অধিকার। একজন শিড়্গিত মানুষ নিজে আলোকিত হন অন্যকে আলোকিত করেন। ৮ সেপ্টেম্বর বিশ্ব সাড়্গরতা দিবস, ১৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় শিক্ষা দিবস। শিক্ষার সঙ্গে সাড়্গরতার নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। এই নিরিখে ১৭ সেপ্টেম্বর এডুকেশন টুডে’র জন্ম। এডুকেশন টুডে সম্পাদকসহ এডুকেশন টুডে পরিবারকে ধন্যবাদ। তারা বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় আরও ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে সে আশা আমাদের সকলের।
এডুকেশন টুডে সম্পাদক এম শরীফ উল আলম সকলকে ধন্যবাদ এবং সকলের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Share/Save/Bookmark